অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম | ২০২২

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় পাঠক, আশা করি আপনারা ভালো আছেন। আজ আমি আপনাদের জন্য নিয়ে এলাম বর্তমান সময় খুবই আলোচিত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আর সেই বিষয়টি হলো অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন নিয়ম। তাহলে জেনে নিন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম ।

অনেকে ইউনিয়ন অফিসে গিয়ে জন্ম নিবন্ধন করার জন্য হয়রানি হয়ে থাকে। আর কোনো চিন্তা নাই, এখন থেকে মোবাইলে আপনি জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের আবেদন করতে পারবেন।

আপনি চাইলে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের ভূল ক্রুটি সংশোধনের আবেদন করতে পারেন, খুবই সহজে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

অনেকে জন্ম নিবন্ধন ভূল সমাধান করার জন্ম ইউনিয়ন অফিসে গুরাগুরি করতেছে। কিন্তু সময় মতো ঠিক করতে পারছে না। আবার দেখা যায় অনেকে দালালের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন ঠিক করে থাকে, প্রচুর টাকা খরচ করে থাকে।

আর দালালের পিছনে গুরতে হবে না, টাকা বেশি খরচ করতে হবে না। এখন আপনি ঘরে বসেই জন্ম নিবন্ধনের সংশোধন বা ভূল সমাধানের আবেদন করতে পারবেন, মোবাইল দিয়ে। তাহলে শুরু করা যাক।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে হলে, নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন।

তোমাদের পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর থাকে, তাহলে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করে তাদের নাম সংশোধন করে আসতে হবে। এরপর যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে থাকেন, তবে তাদের নাম সংশোধন করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

আর যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না দিয়ে থাকেন, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।

যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পূর্বে হয়, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতা মৃত হলেও তাদের মৃত্যুর কোন প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে না।

এখন যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার পিতা/মাতা মৃত হয় এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পরে হয়, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতার মৃত্যুর প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

অনলাইন নতুন জন্ম নিবন্ধন করার নিয়ম | ২০২২

জন্ম নিবন্ধন ইংরেজি করার নিয়ম | ২০২২

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কি কি লাগবে?

বর্তমান সময় সকল কিছু অনলাইনের মাধ্যমে আদান প্রদান চলছে। তাই বর্তমান সরকার দেশের সকল নাগরিকদের জন্ম সনদ অনলাইন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাহলে জেনে নিন জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে কি প্রয়োজন হবে, নিম্নে দেওয়া হলো।

১. আবেদনকারীর জন্ম নিবন্ধন (যা অনলাইনে নিবন্ধিত থাকতে হবে);

২. পিতা ও মাতার জন্ম নিবন্ধন (যা অনলাইনে নিবন্ধিত থাকতে হবে)

৩. শিক্ষাগত যোগ্যতা সনদ/টিকা সনদ অথবা তথ্য প্রমাণের জন্য অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কোনো সনদ

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার পদ্ধতি

তোমাদের জন্ম নিবন্ধনের ভূল সংশোধন অনলাইন আবেদন করার জন্য, নিচের দেখানো ধাপগুলো অনুসরণ করুন। নিম্নে ধাপ গুলো দেওয়া হলো

১ম ধাপ:

তোমাদের মোবাইল ফোনের ইন্টারনেট কানেকশন চালু করুন।

আপনার মোবাইল ফোনের মধ্যে থাকে (Chrome Apps) ক্রম বাউজার ক্লিক করবেন। তারপর সার্চ বার খালি ঘরে লিখবেন http://bdris.gov.bd/br/correction লিখা শেষে সার্চ করুন।

আপনার সামনে নিচের ছবির মত জন্ম নিবন্ধন সংশোধন অনলাইন আবেদন ফরম পোর্টাল চালু হবে। প্রদত্ত নিদের্শনা অনুসরণ করে পরর্বতী ধাপে প্রবেশ করুন।

জন্ম নিবন্ধন ভূল সংশোধন করার নিয়ম

জন্ম তথ্য সংশোধন ফরমে, যার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে চান, তার জন্ম নিবন্ধন নম্বর প্রবেশ করুন। আপনার অনলাইন নিবন্ধন নম্বর ১৭ ডিজিট প্রবেশ করুন এবং জন্ম তারিখ ড্রপ ডাউন মিনু থেকে নির্বাচন করে অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন। তথ্য সঠিক থাকলে নিচে নিবন্ধিত ব্যক্তির তথ্য প্রদর্শন করবে।

প্রর্দশিত তথ্যের পাশে থাকা নির্বাচন করুন একশন বাটনে ক্লিক করুন। আপনি কি নিশ্চিত? নাম একটি কনফার্মেন মেসেজ প্রদর্শন করবে। সেখানে কনফার্ম বাটনে ক্লিক করুন। তারপর আপনাকে পরবর্তী ধাপে নিয়ে যাবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য অবশ্যই নিবন্ধিত ব্যক্তির জন্ম সনদটি অনলাইনে থাকতে হবে এবং জন্ম সনদ নম্বর ১৭ সংখ্যার হতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন ২০২২

দ্বিতীয় ধাপঃ নিবন্ধন কার্যালয়ের ঠিকানা নির্বাচন

এই ধাপে আপনার যে ইউনিয়ন বা পৌরসভার অধীনে জন্ম নিবন্ধনটি করা হয়েছে সে ঠিকানা নির্বাচন করতে হবে। এরজন্য নিচের ছবিতে দেখানে নির্দেশনা অনুসরণ করুন;

এখানে প্রথমে দেশ ড্রপ ডাউন মেনু থেকে যে দেশ থেকে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন করা হয়েছে, সে দেশ নির্বাচন করুন। বাংলাদেশ নির্বাচন করলে বিভাগ অপশন থেকে বিভাগ ও ছবিতে প্রর্দশিত আবশ্যিক তথ্যগুলো নির্বাচন করুন।

সকল তথ্য নির্বাচন হয়ে গেলে পরর্বতী বাটনে ক্লিক করে, পরবর্তী ধাপে প্রবেশ করুন। এই ধাপে আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের মূল কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

তৃতীয় ধাপ : সংশোধনের আবেদন ফরম পূরণ

এই ধাপ জন্ম নিবন্ধনে তথ্য সংশোধনের জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। এখানে আপনি তথ্য সংশোধনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য এন্ট্রি করবেন। নিচে ছবিরমত ফরমটি আগে ভালোভাবে পড়ুন এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিন।

১. বিষয় নির্বাচন: প্রথমে বিষয়ের ড্রপ ডাউন মিনু থেকে সংশোধনের বিষয় নির্বাচন করুন। আপনি চাইলে যেসকল বিষয় সংশোধনের আবেদন করতে পারবেন তাহল-

ক. নাম (বাংলায় ও ইংরেজিতে), খ. পিতা ও মাতার নাম (বাংলায় ও ইংরেজিতে), গ. জন্ম তারিখ, ঘ. জাতীয়তা, ঙ. লিঙ্গ, ও চ. জাতীয় পরিচয়পত্র;

আপনার যে তথ্যটি সংশোধন করার প্রয়োজন তা নির্বাচন করার পর চাহিত সংশোধিত তথ্য বক্সটি সক্রিয় হবে। এখানে আপনার সঠিক তথ্যটি প্রদান করে সংশোধনের কারণ হিসেবে ভুল লিপিবদ্ধ করা হয়েছে নির্বাচন করুন।

জন্ম সনদ সংশোধন করার নিয়ম

গুরুত্বপূর্ণ চতুর্থ ধাপঃ

একাধিক তথ্য সংশোধনের প্রয়োজন হলে আরও তথ্য সংযোজন করুন বাটনে ক্লিক করে সংশোধনের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিন।

ঠিকানা সংক্রান্ত তথ্য এন্ট্রি: সংশোধনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যাদি এন্ট্রি করার পর আপনার জন্ম স্থানের ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানা ও বর্তমান ঠিকানার তথ্য দিন।

সংশোধন জন্ম নিবন্ধন

দেশ, বিভাগ, ডাকঘর (বাংলায় ও ইংরেজিতে), গ্রাম / পাড়া / মহল্লা (বাংলায় ও ইংরেজিতে), বাসা ও সড়ক ( নাম, নম্বর ) সঠিকভাবে এন্ট্রি করুন।

জন্ম সনদ আবেদনকারীর তথ্য

৫ম ধাপঃ

যিনি জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করবেন,তাহার প্রত্যায়ন এবং আবেদন কারীর ব্যাক্তির সহহিত সম্পর্ক।

নিবন্ধনধীন ব্যাক্তি যদি ১৮ বছরের নিম্নে, মানে ১৮ বছরের কম হয়। সেই ক্ষেত্রে তাহার অবিভাবক অথবা পিতা মাতার তথ্য দিতে হবে। পিতা মাতার জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার এবং নাম দিতে হবে। যদি এমন হয়, তাহলে নিচের অপশনে অন্যান্য লেখা আছে। অন্যান্য অপশনে ক্লিক করলে, পিতা মাতার নাম এবং NID নাম্বার, মোবাইল নাম্বার দিতে বলবে।

আর যদি ১৮ বছর বা তার বড় হয় নিবন্ধন ব্যাক্তি, তাহলে নিচে লেখা আছে, নিজ অপশন নিজ অপশনে ক্লিক করলে হবে। নিজ অপশনে ক্লিক করলে খালি ঘরে অটোমেটিক নিবন্ধনধীন ব্যাক্তির নাম দেখাবে।

জন্ম নিবন্ধন ভূল সমাধান করার নিয়ম

নামঃ

ফোন নাম্বার……. নাম্বার দিন।

ইমেইল……… (দিলে ও সমস্যা নাই, না দিলে ও সমস্যা নাই)

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন ২০২২

ধাপ ৬ষ্ঠ

একটু নিচের দিকে যাবেন, লেখা আছে সংযুক্তি( প্রতিটি ফাইলের জন্য সর্বোচ্চ ফাইল সাইজ ১০০ কিলো বাইট)

নিচে লেখা আছে সংযোজন, সংযোজন অপশনে ক্লিক করলে, আপনাকে ডকুমেন্টস ফাইল দিতে বলবে। আমি আগেই উপরে বলে ছিলাম, স্কুল সাটিফিকেট, পিতা মাতার জাতীয় পরিচয় পত্র। এই তিনটি ডকুমেন্টস ফাইল দিতে হবে।

মনে রাখবেন প্রতিটি ফাইলের ১০০ কিলো বাইট হতে হবে। যদি ১০০ কিলো বাইটের বেশি হয়, তাহলে সাবমিট হবে না।

ডকুমেন্টস ফাইল দেওয়ার পর, আপনি ডান পাশের পরবর্তী অপশনে ক্লিক। এখন দেখবেন, আপনি এতোক্ষণ ধরে যা যা পূরণ করলেন। সব কিছু আপনাকে দেখাবে। আপনি মনোযোগ সহকারে পড়ে নিতে পারেন। যদি ভূল কিছু দেখেন, তাহলে নিচে দেওয়া পূর্ববর্তী অপশনে ক্লিক করে সমাধান করতে পারবেন।

আবেদন ফি পেমেন্ট

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় ফি চালান অথবা অনলাইন ফি পরিশোধ পদ্ধতি ব্যবহার করে পরিশোধ করতে হবে।

আপনি যদি অনলাইন পেমেন্ট পদ্ধতি ব্যবহার করতে চান তাহলে ফি আদায় বাটনে ক্লিক করুন এবং চালান এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ করে থাকলে চালান এর মাধ্যমে নির্বাচন করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম

সব কিছু ঠিক থাকলে নিচে, বাম পাশে সাবমিট অপশনে ক্লিক করুন।

জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার পদ্ধতি ২০২২

অনুসরণ করুন সপ্তম ধাপঃ

আশা করি হয়ে গেছে, আপনার আবেদনটি। সাবমিট করার পর, আপনার আবেদন সাকসেস হয়েচে এমন কিছু লেখা দেখাবে। সাথে একটি গুরুত্বপূর্ণ কোড দিবে। নিচে লেখা আছে প্রিন্ট করুন, মোবাইল দিয়ে প্রিন্ট না হলে। আপনি কোড নাম্বারটি স্কিনসোট বা অন্য কিছুতে লিখে নিন।

সংশোধন আবেদন

পরে যে কোনো কম্পিউটার দোকান থেকে, কোডটি দিয়ে, আপনার আবেদন পত্রটি প্রিন্ট করে নিন। তারপর প্রিন্ট করা আবেদন পত্রটি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন বা উপজেলায় নিয়ে যাবেন। সেখানের কর্মকর্তাদেরকে আবেদন পত্রটি দিয়ে বুঝিয়ে বলুন।

এখন আশা করি এক সাপ্তাহের মধ্যে আপনার জন্ম নিবন্ধনটি চলে আসবে, এতে সামান্য কিছু সরকারি ফি লাগবে। সচিব এবং চেয়ারম্যান এর স্বাক্ষর চিল মেরে নিন। আপনার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন হয়ে গেলো।

সর্বশেষ কথা

প্রিয় পাঠক বিন্দু আশা করি আপনাদের বুঝাতে পারলাম, অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম। স্টেপ টু স্টেপ কনটিনিউ করতে থাকুন, ইনশাআল্লাহ আপনি সাকসেস হবেন।

আমাদের সাইটে ভিজিট করুন, আর আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে নতুন নতুন টেকনিক জেনে নিন। যদি জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করার নিয়ম আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হয়েছেন । তাহলে আপনার বন্ধুদের কাছে শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

8 − one =

Scroll to Top