জানাযার নামাজের নিয়ম | এবং দোয়া সমূহ

প্রিয় মুসলিম ভাইয়েরা আজ আপনাদের জন্য, একটি গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল নিয়ে হাজির হলাম। আর আর্টিকেলটা হলো জানাযার নামাজ নিয়ে লিখা। আমাদের দেশ মুসলিম দেশ। কিন্তু আমাদের দেশের অনেক মানুষ জানাযার নামাজের নিয়ম জানে না। তাই আজ লিখলাম জানাযার নামাজের নিয়ম

জানাযার নামাজ ফরজে কেফায়া। অর্থাৎ অনাদায়ে গ্রামের সকলেই গুনাহগার হইবে। অবশ্য কিছু সংখ্যক নামাজ আদায় করিলে ও ফরয আদায় হইয়া যাইবে। তাহাতে অনুপস্থিত গ্রামবাসি আর গুনাহগার হইবে না।

জানাযার নামাজের নিয়ম

প্রত্যেক মুসলমানদের জানাযার নামাজের নিয়ম জানা প্রয়োজন। একটা জিনিস লক্ষ করলে বুঝা যায়, অধিকাংশ মানুষ জানাযার নামজের নিয়ম জানে না। যখন নিজের এলাকার বা বাড়ীর কোন ব্যাক্তির মৃত্যু হয়। তখন জানাযার প্রয়োজন হয়।

ঐ সময় দেখা যায় অধিকাংশ লোক জানাযার নিয়ম জানে না। নামাজের সময় আরেকজন কে প্লো করতে হয়। এমনকি একজন আরেক জনকে জিজ্ঞেস করে থাকে। নামাজের মধ্যে কিদোয়া পড়তে হয়।

যে জানাযার সময় নামাজের নিয়ম জানতে চায়, তার মতো হতো ভাগা আর কে হতে পারে। তাই আপনি ও জানাযার নিয়ম জানুন। আপনার ভাই বন্ধুদের ও আপনি শিখিয়ে দেন। প্রত্যেক নামাজের নিয়ম জানা প্রয়োজন।

জানাযার নামাজ আদায় করিবার নিয়ম

মাইয়িতকে সামনে রাখিয়া ইমাম তাহার সীনা (বক্ষ) বরাবর দাঁড়াইবে। তারপর সকলে নিয়ত করিবে। আমি আল্লাহ পাকের জন্য জানাযার ফরযে কেফায়ার নামাজ আদায় করিতেছি।

এই মাইয়িতের জন্য দুআ করিতেছি। অতঃপর আল্লাহু আকবার বলিয়া নামাজের ন্যায় হাত বাধিবে। অতঃপর সানা পড়িবে। তারপর নিচে বিস্তারিত লিখলাম, আশা করি আপনি পুরো পোস্ট টা পড়বেন। জানাযার নামাজের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং নিয়ম জানা সবারই দরকার।

জানাযার নামাজের দুইটি ফরজ কাজ

জানাযার নামাযের এই দুইটি ফরজ কাজ জানা খুবই প্রয়োজন। প্রত্যেক মুসলমানদের জানা প্রয়োজন।

১. চারবার আল্লাহু আকবার বলা।
২. দাঁড়াইয়া নামাজ আদায় করা।

জানাযার নামাজের তিনটি সুন্নত কাজ

জানাযার নামাযের এই তিনটি সুন্নত কাজ জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

১. প্রথম তাকবীরের পর ছানা পড়া।
২. দ্বিতীয় তাকবীরের পর দরুদ শরীফ পড়া।
৩. তৃতীয় তাকবীরের পর মাইয়িতের জন্য দুয়া করা।


প্রথম তাকবির

আল্লাহু আকবার বলে ছানা পড়া

সানা

আমরা সকলে অবগত আছি যে, প্রত্যেক নামাজে সানা পড়তে হয়। তাই আমরা অধিকাংশ মানুষ সানা পড়তে পারি এবং জানি। আবার কিছু মানুষ সানা পড়া ভূলে যায়, এমনকি অনেকে পারে না। তাই সানা বাংলায় উচ্চারণে লিখলাম নিম্নে।

সুবহানাকা আল্লাহুম্মা ওবিহামদিকা ওতাবারাকাস মুকা ওতাআলা জাদ্দুকা ওজালা ছানাউকা ওলাইলাহা গাউরুকা।

দ্বিতীয় তাকবীর

পুনরায় আল্লাহু আকবার বলিয়া দরূদ শরীফ পাঠ করা।

দুরুদ শরীফ

আল্লাহুম্মা ছল্লিয়ালা মুহাম্মদ ওলা আলি মুহাম্মদ কামা চল্লাই তায়ালা ইব্রাহিম,, ওয়ালা আলি ইব্রাহিম ইন্নাকা হামিদ্দুম্মা জিদ। আল্লাহুম্মা বারিক আলা মুহাম্মদ ওলা আলি মুহাম্মদ, কামা বারাক তায়ালা ইব্রাহিম ওলা আলি ইব্রাহিম ইন্না কাহামি দ্দুম্মা জিদ।



তৃতীয় তাকবীর

পুনরায় আল্লাহু আকবার বলে মৃত্যু ব্যাক্তির জন্য দুয়া পড়া। মানুষ যে দোয়াটি পড়ে, এটা মূলত দোয়া না। এটি কুরআনের কিছু অংশ বা আয়াত। নিম্নে দোয়াটি বাংলা উচ্চারণে দেওয়া হলো।

জানাযার নামাজের দোয়া

আল্লাহুম্মাগ ফিরলি হাইয়েনা ও মাইয়েতিনা ওশাহিদিনা ওগাইবিনা ওচগিরিনা ওকাবিরিনা ওজাকারিনা ও উনছানা, আল্লাহুম্মা মান আহইয়াতাহু মিন্না ফাআহইহি আলাল ইসলামি ওমান তাওফফাইতাহু আলাল ঈমান।

চতুর্থ তাকবীর

আল্লাহু আকবার বলিয়া, ডানে বামে আসসালামু আলাইকুম বলিয়া নামাজ শেষ করিবে।

বি.দ্র.: উল্লিখিত দুয়া বা কুরআনের আয়াতটি প্রাপ্ত বয়স্ক পুরুষ ও মহিলা উভয়ের জন্য।

আরো পড়ুনঃ

তারাবির নামাজের নিয়ম
শবে বরাতের নামাজের নিয়ম
শবে বরাতের নামাজ কত রাকাত

মৃত্যু ব্যাক্তি যদি না বালেগ ছেলে হয়?

তখন তৃতীয় তাকবীরের পরে নিম্নে দুয়াটি পড়তে হবে।

নাবালেগ ছেলে মাইয়াতের দোয়াঃ আল্লাহুম্মাজ আলহু লানা পারা তায়াজ আলহু লানা আজরাও ওঝুখরাও ওজআলহু লানা সাফিআও মুশাপ্পাআও।

মৃত্যু ব্যাক্তি যদি নাবালিগা মেয়ে হয়?

আর যদি মাইয়াত না বালিগা মেয়ে হয়। তৃতীয় তাকবীরের পর নিম্নো দুয়া পড়তে হবে।

নাবালিগা মেয়ে মাইয়াতের দুয়াঃ
আল্লাহুম্মাজ আলহা লানা পারা তাওজ আলহা লানা আজরাও ওঝুখরাও ওজআলহা লানা সাফিআতান্ন ও মুশাপ্পাআতান্ন।

বি.দ্র.= জানাযার নামাযে প্রথম তাকবীর ব্যতীত আর কোন তাকবীরে হাত উঠানো যাবে না।

মৃত্যু ব্যাক্তি দাফন

জানাযার নামাজ শেষ করার পর মাইয়িতকে তাড়াতাড়ি দাফনের ব্যবস্থা করিবে। দাফন করা ফরযে কেফায়া।

দাফনের নিয়ম

কররের পশ্চিমে খাট রাখিয়া কবরের ভিতর প্রয়োজন মত ৩ অথবা ৪ জন নামিয়া পশ্চিম মুখী হইয়া মাইয়িতকে হাতে করিয়া কবরে রাখিবে।

কবরে নামানোর সময় মাইয়িতকে পশ্চিম মুখী করিয়া ডান পাশ্বের উপর শয়ন করাইবে। ইহা সুন্নতে মুআক্কাদাহ। মাইয়াতকে যাহারা কবরে রাখিবে, তাহারা রাখিবার সময় নিম্নে দুয়া পড়িতে হবে।

বিসমিল্লাহি ও আলা মিল্লাতি রাসূলিল্লাহি।

প্রিয় পাঠক যদি আমাদের আর্টিকেলটি ভালো লাগে আপনার। তাহলে আমাদের ওয়েব সাইটের ফেসবুক পেইজ লাইল করে, আমাদের সাথে থাকুন। আর নতুন নতুন কিছু জিনিস জানতে থাকুন। আপনার ফেসবুকের সার্চ বকসে লিখুন banglablogger.info তাহলে পেইজ চলে আসবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × three =

Scroll to Top