October 24, 2020

নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০

Spread the love

বর্তমানে নগদ একাউন্টে লেনদেন খুব জনপ্রিয়তা বাড়ছে। তাই লেনদেন সহজে করতে নগদ একাউন্ট খুলুন। আপনি নগদ একাউন্ট দিয়ে অনেক কিছু করতে পারবেন। ডাক বিভাগের ডিজিটাল লেনদেন সেবা, নগদ। নগদ হচ্ছে বাংলাদেশ সরকারের ডাক বিভাগের একটি ডিজিটাল আর্থিক সেবা। যার মাধ্যমে খুব সহজেই টাকা লেনদেন সম্ভব। তাই নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০ সম্পর্কে জেনে নিন এবং নগদ একাউন্ট খুলুন।

আপনি মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে খুব সহজেই নগদ একাউন্ট খুলতে পারবেন। ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে যাত্রা শুরু হয় এই সেবাটির। সেজন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

প্রথমে আপনি প্লে স্টার থেকে নগদ অ্যাপটি ইন্সটল করুন। তারপর নগদ অ্যাপটি চালু করুন।
Registration লেখায় ক্লিক করুন।তারপর আপনার ফোন নম্বর দিয়ে পরবর্তী ধাপে ক্লিক করুন। আপনার মোবাইল অপারেটর সিলেক্ট করুন। মানে আপনি কি সিম ব্যবহার করতেছেন ঐ সিমের নাম অনুযায়ী সিলেক্ট করুন।


তারপর আপনার আইডি কার্ড কেমন (নতুন নাকি পুরাতন) তা সিলেক্ট করুন। আপনার  জাতীয় পরিচয় পত্রের, মানে আপনার আইডি কার্ডের সামনের ও পিছনের ছবি তুলে দিন। তার পর যদি কোনো পারমিশন চায় দিয়ে দিন।

এর পর আপনি অ্যাপটির স্কিনে দেখতে পারবেন। আপনার আইডি কার্ডে যে সকল তথ্য আছে সব কিছু ঐ অ্যাপে দেখাবে। সেই তথ্যগুলো সঠিক কিনা তা একটু যাচাই করে নিন। এরপর পরবর্তী ধাপে যান।

অ্যাপ দিয়ে নগদ একাউন্ট খোলার ২য় ধাপ

তারপর আপনার মোবাইলে স্ক্রিনে দেখানো তথ্যগুলো পূরণ করুন।
এর পর ইনটারেস্ট পেতে চাইলে অবশ্যই হ্যাঁ সিলেক্ট করুন। এর পর সেলফি স্টাইলে আপনার একটি ফটো তুলুন। ব্যবসার একাউন্ট খুললে ট্রেড লাইসেন্সের ফটো দিন। আর ব্যক্তিগত হলে স্কিপ করুন। লেখায় ক্লিক করে পরবর্তী ধাপ অনুসরণ করুন।

তার পর terms and conditions গুলো পড়ে টিক চিহ্নে (√) ক্লিক করুন। এরপর স্ক্রিনে টাচ করে আপনার (Signature) দিন। তারপর সামনের ধাপে যান।
তারপর আপনার মোবাইলে একটি এসএমএস আসবে। মোবাইলে আসা OTP (One Time Password) টি লিখে এগিয়ে যান। আপনার একাউন্ট খোলা প্রায় শেষ।

নগদ একাউন্ট খোলার ৩য় ধাপ

এখন আপনি আপনার মোবাইলের ডায়েল অপশনে যাবেন। তারপর নগদ এর ইউএসএসডি কোড *167# ডায়াল করে আপনার পিন কোড সেট করে নিন। তাহলেই আপনার একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

আপনার নগদ একাউন্টটি খোলার সাথে সাথেই সেটি Active হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে লেনদেনের লিমিট কম থাকবে। তবে আপনার নগদ একাউন্ট সম্পূর্ণভাবে চালু হতে পাঁচ দিন সময় লাগবে। আর একাউন্ট খোলার সাথে সাথে পাবেন ২৫ টাকা বোনাস। নগদ একাউন্ট খুলুন এবং নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০ সম্পর্কে জেনে নিন।

নগদ কি?

ডাক বিভাগের ডিজিটাল মোবাইল ব্যাংকিং হচ্ছে নগদ। এটি টেকনোলজি লিমিটেড কর্তৃক পরিচালিত। এটি বাংলাদেশ ডাক বিভাগের পূর্বে চালুকৃত পোস্টাল ক্যাশ কার্ড এবং ইলেকট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম (ইএমটিএস)-এর নতুন সংস্করণ।

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

অন্যন্য মোবাইল ব্যাংকিং এর মত নগদে দুটি উপায়ে একাউন্ট বা সকল কিছু দেখা যায়। এমন কি এই দুটি উপায় আরো অনেক কিছু করা যায়। দুটি উপায় হলো –

নগদ অ্যাপ (Nagad App)

নির্দিষ্ট কোড ডায়াল করে

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং কোড

আপনার নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম বা কোড হচ্ছে *167#। নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ইউএসএসডি কোড ডায়াল করে ব্যালেন্স দেখা যাবে। এমনকি নগদের সকল অপশন দেখা যাবে। অপশন পড়ে পড়ে আপনি সব কিছু করতে পারবেন। নিজে নিজে কয়েকবার চেষ্টা করলে সব বুঝে যাবেন। অন্যার সাহায্য নেওয়া লাগবে না। নগদ একাউন্ট দেখা খুব সিম্পল।

নগদ একাউন্টে ব্যালেন্স দেখার নিয়ম

অনেকে নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে কিন্তু ব্যালেন্স দেখার নিয়ম জানে না। নগদে ব্যালেন্স চেক করা খুব সহজ। শুধু আপনাকে কিছু ধাপ অনুসরণ করতে হবে। হতাশ হওয়া যাবে না। আপনি নিজে নিজে ধাপ গুলো একটা একটা করে চেক করে দেখতে পারেন। তার পর আস্তে আস্তে আপনি নগদ এর সব কিছু অল্প সময় বুঝে যাবেন। ব্যালেন্স চেক করার সুবিধার জন্য নিচের ধাপ গুলো অনুসরণ করুন।

আপনি প্রথমে *167# ডায়াল করুন। এরপর My nagad অপশন এর জন্য 7 লিখে Send করুন। তারপর  Balance inquiry এর জন্য 1 লিখে send করুন।

তারপর আপনার নগদ একাউন্টের পিন কোড দিন এবং send করুন। তবে সাবধান পিন কোড দেওয়ার সময় কেউ জেনে আপনার পিন কোড না দেখে। তার পর স্ক্রিনে আপনার নগদ একাউন্ট ব্যালেন্স দেখতে পাবেন। এছাড়া খুব সহজে নগদ অ্যাপের মাধ্যমেও একাউন্ট ব্যালেন্স দেখতে পারবেন।

এজেন্টের মাধ্যমে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম

এমন কিছু মানুষ আছে নগদ একাউন্ট খুলতে পারছেন না। এমনকি অনেকে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ও জানেন না। তারা খুব সহজে এজেন্ডের মাধ্যমে নগদ একাউন্ট খুলে নিতে পারবেন। নগদ একাউন্ট খোলার জন্য কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে আপনার নিকটস্থ এজেন্টের কাছে যান।

যে গুলো নিবেন। আপনি যে সিম দিয়ে নগদ একাউন্ড খুলবেন সেই সিম সহ মোবাইল নিয়ে যাবেন।
আইডি কার্ডের ফটোকপি (অনলাইন কপি হলেও হবে)।
আপনার ২ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি। একাউন্ট খোলার জন্য এই গুলো হলে ও চলবে।

নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে

আপনি যদি নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে যান। চিন্তা করবেন না। আপনি নগদ হেল্প লাইনে কথা বলে নতুন পাসওয়ার্ড নগদে বসাতে পারবেন। এতে নগদ হেল্প লাইন থেকে আপনাকে কিছু তথ্য জিজ্ঞেস করবে।

হয়তো জিজ্ঞেস করতে পারে আপনি সর্বশেষ কখন টাকা লেনদেন করেছেন? হয়তো বা জিজ্ঞেস করতে পারে এই নগদ একাউন্টি কার নামে রেজিষ্ট্রেশন করা আছে। সঠিক তথ্য প্রদান করলে নগদ আপনাকে সাথে সাথে একটি মেসেজ সেন্ড করবে। সেই মেসেজে একটি টোকেন কোড থাকবে।

এই টোকেন ব্যাবহার করেই আপনি নতুন পিন নাম্বার সেটাপ করতে পারবেন। এজন্য নিচের ধাপগুলো আপনাকে অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে।

প্রথমে ৬ সংখ্যার টোকেন নাম্বারটি মনে রাখুন বা কপি করুন।
তারপর *167# ডায়াল করতে হবে।

এখন Enter New Pin নামে একটি অপশন আসবে। সেখানে ৬ সংখ্যার টোকেন নাম্বারটি দিতে হবে।

তারপর আবার প্রায় একই অপশন আসবে। সেখানে আপনি নতুন পিন নাম্বার হিসাবে যা রাখতে চাচ্ছেন তা দিতে হবে। খেয়াল রাখবেন যাতে ভূল না হয়। এমনকি নতুন পিন দেওয়ার সময় কেউ জেনো না দেখে।

সাধারণত এই পিন নাম্বার চার সংখ্যার হয়ে থাকে। তবে কোনো ক্রমিক সংখ্যা দেওয়া যাবে না।
পরিশেষে পুনরায় উক্ত পিন নাম্বার দিয়ে কনফ্রাম করুন।

এই ধাপ সমূহ অনুসরণ করে আপনার নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলেও নতুন পিন নাম্বার সেটাপ করতে পারবেন।

তবে পিন নাম্বার মনে রাখা বুদ্ধিমানের কাজ। তাই আপনি চাইলে পিন নাম্বারটি আপনার ঘরে কোনো জাগায় লিখে রাখতে পারেন। এমন কি কোনো ডায়রি অথবা খাতায় লিখে রাখতে পারেন। আবার ও বলি কারো সাথে পিন নাম্বার শেয়ার করবেন না।

নগদ হেল্পলাইন নাম্বার

আপনার নগদ একাউন্টে কোনো সমস্যা দেখা দিলে, আপনি হেল্প নিতে পারবেন। আপনি যদি কোনো কারণ বসত আপনার নগদ একাউন্ট পিন ভূলে যান তাহলে হেল্প লাইনে কল করে সমাধান করতে পারবেন। নগদ হেল্পলাইন বা কাস্টমার কেয়ার নাম্বার হচ্ছে 16167 or 09609616167

নগদে মোবাইল রিচার্জ এর নিয়ম

আপনি নগদ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে যে কোনো সময় মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন। আপনাকে কিছু ধাপ প্লো করতে হবে। ধাপ গুলো হলো

* নগদ মোবাইল মেন্যু ওপেন করুন।

* নম্বর দিন

*পরিমাণ লিখুন

*ব্যালেন্স রিসিভ করুন

খুব সহজে আপনার মোবাইল রিচার্জ হয়ে গেলো। তারপর আপনি একটি কনফার্মেশন মেসেজ পাবেন। নগদ অ্যাকাউন্ট দিয়ে আপনি নিচের মোবাইল অপারেটরগুলোর প্রিপেইড রিচার্জ করতে পারবেন। এমন কি পোস্ট-পেইড বিল পরিশোধ করতে পারবেন খুব সহজে।
*গ্রামীণফোন।
*রবি
*এয়ারটেল টেলিটক।

নগদ বিল পে

আপনি নগদ একাউন্টের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করতে পারবেন। নগদ বিল পে সার্ভিসের মাধ্যমে বিল দিতে পারবেন যখন ইচ্ছা তখন।

বর্তমান যুগে মানুষ এখন অনেক ব্যস্ত। মানুষের এই ব্যস্ত জীবনকে সহজ করে দিয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। মানুষ এখন চাইলেই খুব সহজে যেকোন জায়গা থেকে যেকোন সময় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গ্রহণ করতে পারেন। তাই আপনার জীবনকে আরো সহজ করতে এবং সময় বাঁচাতে নগদ নিয়ে এসেছে বিল পে সার্ভিস। মাত্র কয়েক মিনিটের মাধ্যমে অল্প সময়ে আপনি বিল পে করতে পারবেন।

এখন থেকে আপনার বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, টেলিফোন, ইন্টারনেট ও অন্যান্য বিলের পেমেন্ট করতে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হবে না।

আপনি ঘরে বাইরে বা যেখানেই থাকুন না কেন নগদ বিল পে সার্ভিসের মাধ্যমে বিল দিতে পারবেন আপনার ইচ্ছা মতো।

নগদ  বিল পে সার্ভিস ব্যবহার করে আপনি নিম্নলিখিত বিলারদের বিলগুলি পরিশোধ করতে পারবেন।

১। বিটিসিএল টেলিফোন।

২। বিটিসিএল ডোমেইন।

৩। ডিপিডিসি এইচআর।

৪। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল।

৫। ডেসকো

৬। ডিপিডিসি

৭। জালালাবাদ গ্যাস।

৮। ঢাকা ওয়াসা।

৯। খুলনা ওয়াসা

১০। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোভিড-১৯ টেস্ট হোম

১১। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোভিড-১৯ টেস্ট বুথ

১২। বিএমইটি

১৩। একাদশ শ্রেণির ভর্তি

১৪। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিদেশগামী বুথ কোভিড-১৯ টেস্ট

১৫। খুলনা গ্যাস

১৬। তিতাস গ্যাস নন মিটারড ডিমান্ড নোট

১৭। তিতাস গ্যাস নন মিটারড ডোমিস্টিক

১৮। সোনালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিঃ

১৯। আকাশ ডিটিএইচ।

নগদ অ্যাপ দিয়ে বিল পরিশোধ করার নিয়ম

আপনি প্রথমে নগদ অ্যাপ হোম স্ক্রিন থেকে বিল পে নির্বাচন করুন। তারপর
বিলার প্রতিষ্ঠানের নাম নির্বাচন করুন। এরপর একাউন্ট (রেফারেন্স) নাম্বার এবং প্রয়োজনীয় তথ্য টাইপ করুন। রিচার্জের পরিমাণ নিশ্চিত করুন এবং বিল পে সম্পন্ন করতে আপনার নগদ পিনটি ইনপুট করুন। হয়ে গেলো বিল পরিশোধ খুব সহজে। তাই আপনাকে নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০ সম্পর্কে জানতে হবে।

নগদ ক্যাশ ইন

ক্যাশ ইন সার্ভিস এর মাধ্যমে। দেশের যেকোনো নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে আপনার নগদ অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করতে পারবেন। ক্যাশ ইন বা ক্যাশ আউট করার নিয়ম নিচে দেখুন।
 
১। আপনার নিকটস্থ নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট ভিজিট করুন এবং কত টাকা ক্যাশ ইন করতে চান তা উদ্যোক্তাকে জানান। উদ্যোক্তাকে সুন্দর করে ক্লিয়ারলি বলুন।


২। উদ্যোক্তা রেজিস্টার খাতায় টাকার পরিমান ও আপনার নগদ অ্যাকাউন্ট নাম্বার লিখুন।

৩। যে পরিমান টাকা ক্যাশ ইন করতে চান তা উদ্যোক্তাকে পে করুন।

৪। উদ্যোক্তা আপনার নগদ অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দিবে।

 
ক্যাশ ইন সম্পন্ন হলে আপনি এবং উদ্যোক্তা উভয়ই কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।

কম খরচে ক্যাশ আউট

যেখানে কম টাকায় ক্যাশ আউট করা হয়, সবাই সেখানে যায়। তাই দেশের সবচেয়ে কম ক্যাশ-আউট চার্জ নিয়ে এসেছে  নগদ। ৬ অক্টোবর, ২০১৯ থেকে নগদ-এর সকল গ্রাহক যেকোনো নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্ট থেকে ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ মূল্যে ক্যাশ-আউট করতে পারবেন। অর্থাৎ প্রতি হাজারে নগদ এর ক্যাশ-আউট চার্জ এখন ১৪ টাকা ৫০ পয়সা মাত্র।

নগদ অফার

সবাই তো চায় অফার। অনেকে প্রতিনিয়ত অফার খুজতে থাকে। তাই সবসময়ই নগদ আপনার জন্য রেখেছে দারুণ দারুণ সব অফার। এই অফারগুলো জানতে এখানে ক্লিক করুন।

আরো পড়ুনঃ বিকাশ একাউন্ট খুলুন মাত্র ২ মিনিটে

নগদ ব্যাংকিং সঞ্চয় মুনাফার হার

আপনার নগদ মুনাফার স্ল্যাববার্ষিক মুনাফা হার ৫০০১ টাকা থেকে ৩০০,০০০ টাকা। ৭.৫%১০০১ টাকা থেকে ৫০০০.৯৯ টাকা। ৫.০%০ টাকা থেকে ১০০০.৯৯ টাকা০.০%।

মাসিক ভিত্তিতে মুনাফা প্রদান করা হবে।
প্রতিদিনের মুনাফার হার হিসাব করে মাস শেষে মুনাফা প্রদান করা হবে।
দেশের আইন অনুযায়ী প্রযোজ্য ট্যাক্স বা ভ্যাট কর্তনের পর সরাসরি নগদ অ্যাকাউন্টে মুনাফার অংশ পাঠিয়ে দেয়া হবে। খুব সহজে জেনে নিন নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০ আপনি নিজেই জানুন, অন্যকে ও জানাতে পারেন।

গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট স্ট্যাটাস জনিত কোনো সমস্যার কারণে মুনাফা বিতরণ করা না গেলে, সে মাসে উক্ত গ্রাহক কোনো মুনাফা পাবেন না।
মুনাফা লাভের জন্য গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট অবশ্যই চালু থাকতে হবে।

‘নগদ’ কোনোরকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই, যেকোনো সময় ক্যাম্পেইনের যেকোনো শর্তাবলি পরিবর্তন করবে। এমনকি পরিবর্ধন এমনকি ক্যাম্পেইন বাতিল করারও অধিকার সংরক্ষণ করে।

প্রযোজ্য আইন, রেগুলেটরি নির্দেশিকা কিংবা নিজস্ব নীতির উপর ভিত্তি করে, ‘নগদ’ মুনাফা বাতিল করার অধিকার সংরক্ষণ করে।

নগদ মুনাফা সেবা বাতিলের পদ্ধতি 

কোনো গ্রাহক যদি মুনাফা বাদ দিতে চান। তাহলে নগদ কল সেন্টার নম্বর (১৬১৬৭)-এ কল করে, ‘সার্ভিস রিকোয়েস্ট’-এর মাধ্যমে গ্রাহক তার মুনাফা সেবা গ্রহণ বা বাতিল করতে পারেন।

গ্রাহকের অনুরোধ সফলভাবে গৃহীত হলে সে ব্যাপারে তাকে অবগত করা হবে।

One thought on “নগদ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *