সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করার নিয়ম | NID দিয়ে চেক করার নিয়ম।

প্রিয় পাঠক আজ তোমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি আর্টিকেল নিয়ে আসলাম। বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী, অনেকে সিম রেজিষ্ট্রেশন করতে পারছে না। কারণ তার NID জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে অতিরিক্ত সিম রেজিষ্ট্রেশন হয়ে গেছে। আপনার আইডি কার্ড দিয়ে কয়টি সিম নিবন্ধন করছেন, হয়তো আপনি ভূলে গিয়েছেন। তাই আজ নিয়ে এলাম, সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করার নিয়ম ।

আজকের আর্টিকেলে আপনি খুব সহজে জানতে পারবেন, আপনার নামে কয়টি সিম রেজিষ্ট্রেশন আছে। অনেকে নতুন সিম রেজিষ্ট্রেশন করে ক্রয় করতে চায়। কিন্তু তার এনআইডি কার্ড দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন হয় না। এর কারণ হলো আপনার NID কার্ড দিয়ে হয়তো অতিরিক্ত সিম রেজিষ্ট্রেশন করে পেলছেন।

সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক

সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করার নিয়ম

বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী একটি এনআইডি কার্ড দিয়ে, সর্বোচ্চ ১৫ টি সিম রেজিষ্ট্রেশন বা নিবন্ধন করা যায়। হয়তো অনেকে নতুন নতুন সিম ক্রয় করতে থাকে, প্রয়োজনে বা অপ্রয়োজনে। কিন্তু তারা জানে না, একটি NID কার্ড দিয়ে ১৫ টির বেশি সিম ক্রয় করা যাবে না।

আবার অনেকে তার নিজের NID কার্ড দিয়ে, তার বন্ধু বান্ধবী এবং আত্মীয় স্বজনদের সিম কিনে দেয়। কিন্তু এটা ঠিক নয়। বর্তমানে অনেকে সিম কার্ড ব্যবহার করে, চুরি ডাকাতি, ব্লেক মেল যাবতীয় খারাপ কাজ করে থাকে। তাই আমি মনে করি নিজের এনআইডি কার্ড দিয়ে, অন্যদের সিম কিনে দেওয়া ঠিক নয়।

সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করার নিয়ম

প্রথমে আপনি আপনার মোবাইলে ইউএসএসডি এর মাধ্যমে *16001# নম্বারে ডায়াল করতে হবে। ফিরতি রিপ্লাইয়ে  খালি ঘরে, আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের শেষের ৪ সংখ্যা দিয়ে send করুন। অথবা আপনার পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসসেন্স / জন্ম নিবন্ধন এর শেষের ৪ ডিজিট লিখে পাঠাতে পারেন।

সিম নিবন্ধন চেক

আপনাকে ছবিতে দেওয়া এমন একটি sms পাঠাবে। আপনি ঐ এসএমএসে খুব সহজে জানতে পারবেন, আপনার nid কার্ড দিয়ে কয়টি সিম নিবন্ধন আছে।

তাছাড়া, আপনি যদি এসএমএস (SMS) এর মাধ্যমে সিম নিবন্ধন যাচাই করতে চান? তাহালে আপনার জাতীয় পরিচয়পএের / পাসপোর্ট / ড্রাইভিং লাইসসেন্স / জন্ম নিবন্ধন এর শেষের ডিজিট লিখে এসএমএস (SMS) পাঠাতে হবে 16001 নম্বারে। 

NID কার্ড দিয়ে সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করার নিয়ম / সিম নিবন্ধন দেখার নিয়ম

১. রবিঃ রবি থেকে ডায়াল করুন  *16001# নম্বারে।

২. এয়ারটেলঃ এয়ারটেল থেকে ডায়াল করুন *16001# নম্বারে।

৩. গ্রামীণফোনঃ গ্রামীণফোন থেকে info লিখে send করুন 4949 নম্বারে

৪.বাংলালিংকঃ বাংলালিংক থেকে ডায়াল করুন *16001# নম্বারে।

৫. টেলিটকঃ টেলিকম থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন info লিখে send করুন 1600 নম্বারে।

আরো পড়ুনঃ

মোবাইল ফোন নিবন্ধন কিনা যাচাই করার পদ্ধতি

রবি এসএমএস অফার | ২০২১

সিমটি কত তারিখে রেজিষ্ট্রেশন করছেন? / সিমটি কখন রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে দেখার নিয়ম

আপনার মূল্যবান সিমটি কবে, কখন কত তারিখে, এমনকি কোন বছরে রেজিষ্ট্রেশন করছেন। খুব সহজে জানতে পারবেন।

আপনি ইউএসডির মাধ্যমে *1600# ডায়েল করবেন। পরের অপশনে ১ নাম্বারে দেওয়া আছে re- registration। খালি ঘরে 1 দিয়ে send করুন। পরের অপশনে আপনাকে দেখাবে আপনার সিমটি কত তারিখে কবে রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে।

ঠিক এই ভাবে আপনি খুব সহজে জানতে পারবেন। আপনার কোন সিম কখন নিবন্ধন করেছেন।

NID কার্ড দিয়ে কয়টি সিম নিবন্ধন হয়েছে দেখার নিয়ম

Aponi চাইলে, আপনার পরিবারের আপন কাউকে, আপনার NID কার্ড দিয়ে সিম কিনে দিতে পারেন। কারণ তারা আপনার আপন জন, আপনি ভালো করে জানেন তারা সিম দিয়ে কোনো খারাপ কাজে লিপ্ত হবে না। কিন্তু অন্যদের সিম কিনে দেওয়া মানে, আপনি নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারলেন।

প্রিয় গ্রাহক আপনি যে কোনো সিম ব্যবহার করে থাকেন, সমস্যা নাই। আপনি যে কোনো সিম অপারেটরের মাধ্যমে সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করতে পারবেন।

আপনার NID কার্ড দিয়ে অতিরিক্ত সিম রেজিষ্ট্রেশন করেছন তখন কি করবেন?

যদি আপনার nid কার্ড দিয়ে যদি অতিরিক্ত বা বেশি sim registration হয়ে থাকে। তাহলে আপনি কাস্টমার কেয়ার অফিসে তাদের সাহায্য নিতে পারবেন। তাদের সাহায্য অতিরিক্ত সিম গুলো বন্ধের আওতায় আনতে পারবেন।

আর যদি আপনার NID কার্ড দিয়ে, আপনার বন্ধু বা আপন কেউকে সিম রেজিষ্ট্রেশন করে দিয়ে থাকেন। এখন আপনি আপনার এনআইডি কার্ড থেকে ঐ সিম বাতিল করতে চান। তাহলে তাদের সাথে যোগাযোগ করে নিয়ে, তাদের NID কার্ডে ঐ সিমটি রেজিষ্ট্রেশন করে নেওয়া যাবে।

আপনি তাকে এবং তার এনআইডি কার্ড নিয়ে, নিকটস্থ কাস্টমার কেয়ার অফিসে নিয়ে যাবেন। সেখানে গিয়ে সিম রেজিষ্ট্রেশন পরিবর্তন করতে পারবেন। তাছাড়া এখন যে কোনো মোবাইল সিম দোকানে গিয়ে ও সিম নিবন্ধন পরিবর্তন করতে পারবেন।

আপনার NID দিয়ে নিবন্ধন সিম অপরিচিত কারো কাছে থাকলে কি করবেন?

জনাব আপনি যদি আপনার বন্ধু বা বিশ্বস্ত কাউকে সিম রেজিষ্ট্রেশন করে নিয়ে দেন। কিছুদিন পর সেই আপনার শত্রু হয়ে গেলো। হয়তো সেই আপনার নামে নিবন্ধন সিম দিয়ে কোনো খারাপ কাজে লিপ্ত হতে পার। তখন আপনি বিপদে পড়তে পারেন।

এমন কিছু মনে করলে আপনি ঐ সিম কার্ড বন্ধের আওতায় আনতে পারবেন। কাস্টমার অফিসে গিয়ে। আর না হয়, আপনি চাইলে কাস্টমার অফিসে গিয়ে সিমটি, আপনার কাছে নিয়ে আসতে পারবেন। আপনি নিজেই ঐ সিমটি ব্যবহার করতে পারবেন।

সর্বশেষ কথা

তাহলে আজ তোমাদের আশা করি বুঝাতে পারলাম, কিভাবে সিম রেজিষ্ট্রেশন চেক করা যায়। এই রকম অসংখ্য টিপস পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের পেইজে লাইক করুন। আশা করি আপনি নতুন কিছু জানতে পারবেন। আমাদের পেইজের লিংক https://www.facebook.com/banglablogger.info/

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 + 14 =

Scroll to Top