এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০২১

আজ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং তারিখে শিক্ষামন্ত্রী এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ করেন। এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে ২ নভেম্বরে। তিনি আরো বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে পরীক্ষা হবে প্রতি বিষয় ৫০ নাম্বার করে।

দীর্ঘ দিন স্কুল প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে, শিক্ষার্থী পড়াশোনা করতে পারে নাই। তাই শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুযায়ী এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে।

এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা নেওয়া হবে ২ সিপ্টে। শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার হলে নিজ নিজ আসনে ইচ্ছে মতো বসতে পারবে। তাহলে জেনে নিন এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন।

প্রতিটি বিষয়ের পরীক্ষার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট। পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার কেন্দ্রের আসন গ্রহণ করতে হবে।

এইচএসসি পরীক্ষার রুটিন / HSC exam routine 2021

সকালে নির্ধারিত পরীক্ষা সকাল ১০টা থেকে ১১.৩০টা আর দুপুরে নির্ধারিত পরীক্ষা বেলা ২টা থেকে বিকেল ৩.৩০টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। তাহলে জেনে নিন এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচি ২০২১।

পরীক্ষার নেওয়ার কিছু নতুন সিদ্ধান্ত

১. পরীক্ষা হবে দেড় ঘন্টা।

২. স্বাস্থ্য বিধিমালা মেনে পরীক্ষা ২ সিপ্টে নেওয়া হবে।

৩. প্রতি বিষয় পরীক্ষা হবে ৫০ নাম্বারের।

৪. পরীক্ষায় যোগ্যতা ভিত্তিক প্রশ্ন থাকবে ১০ টি। হয়তো শিক্ষার্থীদের লিখতে হবে ২ থেকে ৩ টি।

৫. সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুযায়ী এসএসসি পরীক্ষা হবে।

৬. পরীক্ষা শেষ হওয়ার ঠিক ১ মাস পর পরীক্ষার রেজাল্ট দিবে।

শিক্ষার্থীদের বিশেষ শর্তকতা

১. পরীক্ষা শুরু হওয়ার কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে আসতে হবে।

২. এমসিকিউ ও সৃজনশীল পরীক্ষার মাঝখানে কোনো বিরতি থাকবে না।

৩. তাদের মনে রাখতে হবে, প্রতিটি বিষয় পরীক্ষা হবে ৫০ নাম্বার অনুযায়ী।

৪. শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রবেশ পত্র গ্রহন করবে, অত্র প্রতিষ্ঠানের প্রধানের নিকট থেকে।

৫. শিক্ষার্থীরা সাইন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে।

৬. পরীক্ষার্থীদের তাদের পরীক্ষার কাগজে সুন্দর করে রোল নং, রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার এবং বিষয় কোড দিয়ে বৃত্ত বরাট করতে হবে।

আরো জেনে নিনঃ

এসএসসি পরীক্ষার রুটিন ২০২১

সর্বশেষ কথা

সকল ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় নির্দেশে। সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুযায়ী এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে। যাতে শিক্ষার্থীদের প্রতি লেখা পড়ার বেশি চাপ না পড়ে। দীর্ঘ দিন স্কুল প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা পড়া লেখা করতে পারে নাই।

তাই শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে শিক্ষামন্ত্রী সংক্ষিপ্ত সিলেবাস অনুযায়ী পরীক্ষা নেওয়া সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen + four =

Scroll to Top